ডিবির হাওর (Dibir Hawor)

সিলেট জেলার জৈন্তাপুর উপজেলাধীন বাংলা-ভারত সীমান্ত ঘেঁষা পাহাড়ের বেষ্টনী দ্বারা আবৃত ডিবির হাওর (Dibir Hawor)। সিলেট শহর থেকে ডিবির হাওর (Dibir Hawor) এর দূরত্ব ৪২ কিলোমিটার। ইয়াম, ডিবি, হরফকাটা, কেন্দ্রী বিল নামে এখানে মোট চারটি বিল রয়েছে। বর্ষাকালে ৪টি বিলগুলো একই সাথে একটা শাপলার রাজ্যে পরিণত হয় শীতের মাঝামাঝি পর্যন্ত থাকে । সমস্ত বিল জুড়ে হাজার হাজার লাল শাপলা ছড়িয়ে ছীটিয়ে থাকে।

লাল শাপলার রুটিন

Dibir-hawor-lal-shapla


শাপলাগুলো ফোটে সাধারণত সকাল, মানে ভোরে । দুপুর গড়ানোর পূর্ব পর্যন্ত শাপলা গুলু চোখ-মূখ মেলে অট্রোহাসি দিয়ে পর্যটকদের মনকাড়ে । হাজারো লাল শাপলা আলোকিত করে রাখে চারপাশ। প্রকৃতি যেন আপন মনের মাধুরীতে লাল শাপলার রঙে বিলগুলোকে সাজিয়ে রেখেছে। ভ্রমণ পিপাসুরা সারাজীবন মনে রাখার জন্য ডিবির হাওরের একটি সকালই যথেষ্ট।

Dibir-Hawor-People-are-riding-boat


বেলা গড়ানোর সাথে সাথে শাপলা গুলো যেন সারাদিনের ক্লান্তিভরে চোখে ঝিমুনি ধরে নিচেরদিকে মাথা নোয়ায়ে ঘুমানোর চেষ্টায় ব্যস্ত । যখন সন্ধ্যা নামে সূর্য্য ডুবি ডুডি তখনই আর কারও দিকে না তাকিয়ে সবাই দেয় ঘুম । পর্যটক রা এ সময়ে দেখতে পারেন শাপলা গুলু একটার সাথে আরেকটার মাথা লাগিয়ে আর উপরের দিকে তাকাচ্ছেনা । সবুজের বিছানায় একটানা সকাল পর্যন্ত ঘুম । আবার সেই রূটিন ।

ডিবির হাওরের পরিচিতিঃ

old-mondir-with-people


অনেকের কাছে শাপলা বিল নামেও ডিবির হাওর (Dibir Hawor) পরিচিতি, অনেকে আবার ইয়াম্বিল নামেও জানেন । ডিবির হাওর (Dibir Hawor) পর্যটকদের কাছে যেমন লাল-শাপলার বিশাল মাঠ, তেমনি জৈন্তিয়া রাজ্যের ধ্বংসপ্রাপ্ত একটি মন্দির “দুইশত বছরের বেশি সময়ের স্বাক্ষি বলে” মনকাড়ে ।


ঐতিহাসিকদের মতে, জৈন্তা রাজ্যের কোন এক রাজাকে ডিবির হাওর (Dibir Hawor) এর কোথাও যেন পানিতে ডুবিয়ে মেরে ফেলা হয়েছিলো । ধারণা করা হয় পরবর্তীতে তার উত্তরসূরিরা তার স্মৃতির উদ্দেশ্যে এ মন্দির টি নির্মান করেন । হরফকাটা এবং ডিবি বিলের মধ্যস্থলে রাজা রাম সিংহের সমাধিস্থল আরেকটি ইতিহাসের স্বাক্ষি ।

othiti-pakhi-in-dibir-hawor


অতিথি পাখিরা শীতের মৌসুমে দল বেধে চলে আসে লাল-শাপলার সৌন্দর্য্য দেখতে, এরা যেন আরেক পর্যটকের দল । সারা হাওর জূড়ে পাখিদের কিচিরমিচির । সাদাবক মাথা উচিয়ে আর পান কৌড়ি মাথা নিচু করে মনে লালা শাপলার সাথে কথা কয় ।

ডিবির হাওরের অতীত ইতিহাস
othiti-pakhi-shapla-bill


ডিবির হাওরে কিন্তু প্রকৃত পক্ষে কোন শাপলা ছিলনা । অনেক বছর আগে খাসিয়া সম্প্রদায় লাল শাপলার চারা রোপন করে , এবং এ ফুলের বিস্তার গঠায় । উল্লেখ্য ভারতের খাসিয়ারা লাল-শাপলা দিয়ে পূজা অর্চনা করতো । পাহাড়ে লাল-শাপলা পাওয়া যেতনা । তাই স্থানীয় খাসিয়াদের দ্বারা এই হাওরে লাল-শাপলার চাষ করতো । এবং দরকার অনুযায়ী পুজা-অর্চনায় ফুলগুলু দিয়ে চাহিদা মেটাতো ।


আর সেই থেকে ডিবি-কেন্দ্রী-হরফকাটা,এবং ইয়াম্বিল সহ আসে পাশের পুকুর খাল ডোবা অঞ্চল ভরে যায় লাল শাপলা ফুলে । চারটি বিল মিলে প্রায় ৭০০ একর জায়গা শাপলা ফুলের দখলে ।

Summary
“জৈন্তুয়া রাজ্যের ইতিহাস আর লোকগাথা বা শ্লোকের বই গুলু থেকে জানা যায় ৭ম অথবা ৮ম শতাব্দিতে প্রাচীন জৈন্তিয়া রাজ্য কামরুপ রাজ্যের অধীনে ছিলো । আর একই সময়ে জৈন্তিয়া পুরে চন্দ্র ও বর্মন বংশের রাজত্ব কায়েম হয় । আবার চন্দ্র-বর্মনদের পতন দেব বংশের হাতে হয়” ।

How to Reach Dibir Hawor

You have to travel just 42 km from Sylhet city to visit the Red Sea of Jainta. You can pick up a local bus or private car for going to your destination via Sylhet Tamabil Highway Road. However, it is good to enjoy the beauty of the Red Sea in the morning from other times of the day.

Dibir Hawor Location Map: