Citrus Research Center Jaintapur (ভূমিকা):

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউট কর্তৃক পরিচালিত একটি কৃষি গবেষনা প্রতিষ্ঠানের নাম জৈন্তাপুর সাইট্রাস গবেষনা কেন্দ্র (Citrus Research Center Jaintapur) । বিভিন্ন ফলের কৌলিকসম্পদ সংরক্ষণ, সংগ্রহ, উন্নত জাতের উদ্ভাবন, গবেষনায় আবিস্কৃত বিভিন্ন জাতের উৎপাদন প্রক্রিয়া, পোকা মাকড় ও রোগ থকে রক্ষার কৌশল, আরও অনেক কৃষি সম্পর্কিত বহুমুখী কার্য্যকলাপ ও কর্মকান্ড জৈন্তাপুর সাইট্রাস গবেষনা কেন্দ্র (Citrus Research Center Jaintapur) দ্বারা পরিচালিত হয়।

(An agricultural research institute run by the Bangladesh Agricultural Research Institute is the name of Jaintapur Citrus Research Center. The conservation, collection, development of advanced varieties of various fruits

Place of Citrus Research Center Jaintapur :

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার প্রধান সদরের উত্তর-পূর্বে মনোরম পাহাড়ী পরিবেশে 48.03 হেক্টর জমির নিয়ে জৈন্তাপুর সাইট্রাস গবেষনা কেন্দ্র। অবস্থিত। সিলেট শহর থেকে সড়ক থেকে এর দুরত্ব 42 কিলোমিটার ।

জৈন্তাপুর সাইট্রাস থেকে তামাবিল স্থল বন্দরের দূরত্ব প্রায় 12 কিলোমিটার।

Visito-Citrus-Research-Center-Jaintapur

(Jaintapur Citrus Research Center with 48.03 hectares of land in pleasant hill environment northeast of Jaintapur Upazila of Sylhet. Located Distance from Sylhet city by road is 44 km. The distance from Jaintapur Citrus to Tamabil ground port is about 12 km.)

পুরো এলাকাটি পাহাড়ী এলাকা ও ছোট ছোট টিলায় বিভক্ত।সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে 54 মিটার উচ্চতায় অবস্থিত জৈন্তাপুর সাইট্রাস।

History of Citrus Research Center Jaintapur:

ফুল ফল ও শাক-সবজি উৎপাদনের প্রয়োজনীয় গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কৃষি কার্যক্রমের অধীনে অর্গানাইজেশন অব হর্টিকালচার সেকশন নামে একটি প্রকল্প 1951 সালে শুরু হয়।এই প্রকল্পের অধীনে তামাবিলের চৈইলাখালে 5.00 একর জমিতে 1954 সালে একটি উপকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়।

এর উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশের তথা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিভিন্ন ধরনের ফলের গাছ সংগ্রহ করে তার মূল্যায়ন ও নির্বাচন (Selection) ও গ্রহন যোগ্যতার ব্যাপারে মূল্যায়ন করা এবং মাঠ পর্যায়ে চাষোপযোগী করা।পরবর্তীতে উক্ত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে 1959-60 সালে জৈন্তাপুর এ 21.46 হেক্টর জমিতে একটি ফল উন্নয়ন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়।

এর উদ্দেশ্য ছিল ফল বিষয়ে বিশেষত সাইট্রাস ফলের উপর গবেষণার কার্যক্রম ত্বরান্বিত করা।

1961-1965 সালে আরও 26.32 হেক্টর জমি উক্ত কেন্দ্রের জন্য অধিগ্রহন করা হয় এবং তখন থেকেই গোলমরিচ চাষাবাদের একটি প্রকল্প চালু করা হয়।চৈইলাখালের উপকেন্দ্রটি 1970 সালে জৈন্তাপুরে স্থানান্তরিত করে উক্ত কেন্দ্রের সাথে একীভুত করা হয়।অতঃপর 1976 সালে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্বপ্রকাশ করলে উক্ত ফল উন্নয়ন কেন্দ্রটি এর অধিভুক্ত হয়।

What is Citrus:

জৈন্তাপুর এলাকা এবং বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলে সাইট্রাস । জাতীয় ফল অর্থাৎ কমলা, মাল্টা, বিভিন্ন ধরনের লেবু, সাতকরা, বাতাবী লেবু ইত্যাদি ফলের সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করে ফল উন্নয়ন কেন্দ্র জৈন্তাপুরকে সাইট্রাস গবেষণা কেন্দ্র (Citrus Research Center Jaintapur) হিসেবে নামকরন করা হয়।

জৈন্তাপুর এলাকায় মসলা জাতীয় ফসলের গবেষণা ও সম্প্রসারনের কথা বিবেচনা করে উক্ত কেন্দ্রে 1997 সালে একটি মসলা গবেষণা উপকেন্দ্রও স্থাপিত হয়ে।

কি দেখার আছে:

সিলেট শহর থেকে 42 কিলোমিটার দূরে জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের অভ্যন্তরে সাইট্রাস অবস্থিত। বিশাল এলাকা জুড়ে বিভিন্ন জাতের ফলোজ ও বনজ জাতের উদ্ভিদের যেন মিলন মেলা ।

পরিবেশ আর প্রকৃতির নিবিড় ছোঁয়ায় ফ্রেস অক্সিজেন, আর রোমাঞ্চকর মুহুর্ত অতিবাহিত করতে এ জায়গাটির তুলনা নেই । প্রধান ফটক থেকে শুরু করে পিচ ঢালা পথে একেবারের পাহাড়ের পাদস্পর্শ ।

ডানে বামে অনেক রকমের দেশি বিদেশি গাছ যেন নুইয়ে অভিবাধন করছে । উদ্ভাবিত বিভিন্ন ফলজ গাছের ভিন্ন জাতের নাম, একই ফল গাছের আবার বিভিন্ন ধরনের বংশ গোত্র ।টক,মিস্টি, দ্রুত বাড়ন্ত, দ্রুত ফলনশীল নানা জাতের নাম ।

আবার চিড়িয়াখানার মতো খাঁচায় বন্দি কিছু নতুন চারা । গাছ আবার আবিস্কার করা যায় এখানে না গেলে আপনি বুঝতে পারবেন না । সবুজ প্রকৃতির এ যেন গ্রীন পার্ক ।

DSLR অথবা মোবাইল যেটা দিয়ে ছবি তুলবেন ব্যাকগ্রাউন্ড ইডিট করা লাগবেনা। প্রকৃতির আপন ব্যাকগ্রাউন্ড আপনাকে অবাক করবে।

কিভাবে যাবেন:

সিলেট শহর থেকে সিলেট-তামাবিল হাইওয়ে রোডে বাস অথবা প্রাইভেট কারে জৈন্তাপুর বাস স্ট্যান্ড।

তারপর জৈন্তাপুর বাজারে যাবার রাস্তা (ফতেখা-রোড) হয়ে, রিক্সা অথবা ব্যাটারিচালিত অটোবাইক এ জন প্রতি ১০ টাকা ভাড়া। ড্রাইভার কে “ফল-বাগান বা সাইট্রাস অথবা কমলাবাড়ি” বললেই নিয়ে যাবে ।

গেইটে নামার পরে অবশ্যই কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে । প্রকৃতপক্ষে কোন গবেশনা প্রতিষ্ঠান ভ্রমনের অভিজ্ঞতাই আলাদা। আমি জৈন্তাপুরকে সাইট্রাস গবেষণা কেন্দ্র (Citrus Research Center Jaintapur) সম্যপর্থাকে সম্ভব আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি। ভাল লাগলে প্লিজ কমেন্ট এবং শেয়ার করতে ভূলবেন না।